দহন – সুচিত্রা ভট্টাচার্য

›› উপন্যাসের অংশ বিশেষ  

…..উত্তাল সমুদ্রের মত ঢেউ ভাঙছিল দুটো শরীর। ঢেউয়ের বুকে ঢেউ। ঢেউয়ের পিঠে ঢেউ। অবিরাম ঢেউয়ের অভিঘাতে চলকে চলকে উঠছে আদিম রিপু। সুদর্শন ছেলেটা গানের কথা আর সুরের সঙ্গে তাল মিলিয়ে পিঠ বুক উদর নিতম্ব কোমর সবঙ্গি দিয়ে ঘাঁটছে রূপসী মেয়েটাকে। মেয়েটার শরীরের চার ভাগের তিন ভাগ উন্মুক্ত। চোলি আর ঘাগরার মাঝে আটলান্টিক মহাসাগরের ব্যবধান। তার মােমে মাজা মসৃণ ত্বক, উদ্ধত যৌবন আর অলৌকিক সুষমা মাখা দেহের প্রতিটি খাঁজ থেকে বিকীর্ণ হচ্ছে তেজস্ক্রিয় কামনা।…..

…..ছেলেটা ঢুলুঢুলু চোখে হাসল। কুৎসিত অশ্লীল চাহনি। রমিতা। পলাশের দিকে ঘেঁষে এল । আঁচল টেনে শরীরের অনাবৃত অংশগুলাে ঢেকে নিল ভাল করে । পিঠ। কোমর। নাভিদেশ।….পিছন থেকে একজন বেশ জোরে চিমটি কাটল রমিতার নিতম্বে। রমিতা কুঁকড়ে গেল।….

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *