নিরুদ্দেশের দেশে – নীললােহিত – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়

›› উপন্যাসের অংশ বিশেষ  

………গতবারের তুলনায় বন্দনাদির স্বাস্থ্য অনেক নিটোল, সুগােল হয়েছে । বুক দুটি পরিপূর্ণ। হায়, ঐ বুকে কোনাে পুরুষ মাথা রাখে না, কোনাে শিশু ওষ্ঠ ছোঁয়ায় না।……

…..শােনাে, আমি তখন মানুষ ছিলাম না, মেয়ে ছিলাম না, ছিলাম একটা পুতুল, কিংবা পােষা জন্তুর মতন। আমাকে ওরা বলতাে, তুমি চেয়ারের ওপর এই ভাবে এক পা তুলে দাঁড়াও, তাতে তােমায় সেক্সি দেখাবে । এই ভাবে তুমি ভিলেনের গলা জড়িয়ে ধরাে, এই ভাবে তুমি শােও, যাতে তােমার ব্রেস্ট আর হিপস এক সঙ্গে দেখা যায়। এই ভাবে তুমি ঘাগড়া উড়িয়ে উরু দেখিয়ে, নদীতে ঝাঁপ দাও ! হ্যাঁ, বিশ্বাস করাে, ওরা এই রকম বলে ।……..

………বন্দনাদি চোখ বুজে প্রথমে একটু চিন্তা করে নিল। দুটো হাত ছড়িয়ে তুড়ি দিতে দিতে তাল ও লয় এলাে । তারপর পদক্ষেপ। তারপর উরুর ভঙ্গিমা । তারপর কোমর। তারপর বুক। শরীরটা মােটা না হলেও বন্দনাদির বুক দুটি ভারি হয়েছে মনে হয়। কিংবা, এখানে তাে ব্রা পরে না।…….

………বন্দনাদির বুকে আমি হাত রেখেছি বটে কিন্তু চাপ দিইনি। যেন একটা পায়রার গা। আমার হাত থেমে আছে, কিন্তু আমার শরীর দুলছে। এক সময় বললুম, বন্দনাদি, তােমায় একটু আদর করবাে ? বলতে গিয়ে আমার গলা কেঁপে গেল। বন্দনাদি তার বুকের ওপর রাখা আমার হাতটা ধরে নিজের গালে ছোঁয়ালাে ।…..

Please follow and like us:

Leave a Reply