ক্রস ফায়ার – নিক কার্টার

›› অনুবাদ  

অনুবাদঃ রায়হান আলম

….‘মৃত্যু’ লােলা বললো। জিহবা দিয়ে ঠোট ভিজিয়ে নিলো লােলা। ঢিলে ঢালা ব্লাউজের ফাক গলে উকি দিচ্ছে স্তন দুটো। ব্রেসিয়ার পরা নেই। লােলা  কী যেন চিন্তা করলো। বললো, এই মেজর! চুপ করে রইলে কেন ? এসাে না…’

টান মেরে ব্লাউজ ছিড়ে ফেললাম। টান মেরে স্কাট খুলে নগ্ন করে ফেললাম ওকে। এরপর যা ঘটলো,  তা স্রেফ ধর্ষন ছাড়া আর কিছু না। যতােটা সম্ভব গায়ের জোরে বিদ্ধ করলাম লােলাকে। কামনায় অধীর লোলা শীৎকার করলো হিসহিসিয়ে। কামনার অনুভূতি আমার থেমে গেলো এক সময়। …..

………হঠাৎ সে সামনে ঝুকে পড়লাে। টান মেরে ছিড়ে ফেললাে মারিয়ার শার্ট। মারিয়ার খােল। স্তনের দিকে তাকিয়ে বললো সে, ‘বাহ! তুমিতো দরুন! ও দুটো তাে বেশ! দেখা যাক, পুরো শরীরটা কেমন। সে মারিয়ার কাছে যেতেই আমি তাকে মাথা দিয়ে আঘাত করার চেষ্টা করলাম। একজন সৈন্য আমাকে টেনে ধরলাে। গলায় ফাঁস এটে বসলাে আমার। বাধো শয়তানটাকে গােমেজ চেচিয়ে উঠলো, আর একবার নড়েছে কি ভর্তা করে দিবো। ট্রাকের ওয়ালের সঙ্গে বাধা হলো আমাকে। মারিয়ার ঘাড় থেকে দড়িটা এনে ওটা দিয়ে কষে আটকালো আমাকে।

মারিয়ার বাধন নেই। চিৎ হয়ে শুয়ে আছে সে। গােমেজের নির্দেশে দুইজন সৈন্য ওর হাত দুটো বাধলো। বুক পুরাে পুরি খোলা। উঠানামা করছে রাগে। অন্য সৈন্যটা ওর ট্রাউজারের বেল্ট খুলে নিয়েছে। মারিয়ার ট্রাউজার খুলছে সে। ‘শুয়ােরের বাচ্চা। মারিয়া চীৎকার করে উঠলো। গােমেজের হাসি আর ধরে না। তার হাসি থেমে গেলো মারিয়াকে পুরােপুরি নগ্ন হতে দেখে। দুই জন সৈন্যকে আদেশ করলে সে মারিয়ার পা দুটো ছড়িয়ে ফাক করে দিতে। মারিয়া চীৎকার করে হাত পা নাড়ালো। অন্য দুই সৈন্য এসে যােগ দিলাে। মারিয়া অসহায়। বুক উঠা নামা করছে ওর। ‘দেখেছো! কী রকম উত্তেজিত হয়েছে এই মেয়ে। মারিয়ার শরীরের যত্রতত্র হাত বােলালো গোমেজ। মাথা তুলে ওর মুখে থুতু মারলাে মারিয়া। একহাত দিয়ে মুখ চেপে ধরলো গােমেজ। ঠোট নামিয়ে চেপে ধরলাে মারিয়ার বুকে। অন্য হাত দিয়ে মারিয়ার দুই উরুর সন্ধি অনুসন্ধান করলাে। আমি দড়ি ছেড়ার চেষ্টা করলাম। পারলাম না। গােমেজকে টুকরাে টুকরাে করে ফেলতে ইচ্ছে হলাে। গােমেজ ওর প্যান্ট খুলে ফেললো। তারপর ঝাপিয়ে পড়লে মারিয়ার ওপর। আমি বসে থাকলাম। নিরুপায় মারিয়াকে দেখলাম ধর্ষিতা হতে। গোমেজের পাশবিকতা শেষ হলো। একটু পরেই। এর পর ঝাপিয়ে পড়লো সৈন্যরা। এক এক করে ।…

…….চট করে লোলা ছুরি দিয়ে মারিয়ার ছিড়ে যাওয়া শটের অংশ কেটে ফেললো। শাটটা ঝুলে পড়লো নিচে। মারিয়ার বুক থেকে নাভির ওপরের অংশ পর্যন্ত কাপড় নেই। ওবরেগন ছাড়া সবাই ওর খােল বুকের দিকে তাকালো।…….

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *